বরানগর থানার দুই করোনা যোদ্ধা আক্রান্ত

গৌরাঙ্গ সাধুঃ করোনার ভয়ে থানায় বসে না থেকে করোনা প্রতিরোধে যুদ্ধে নেমেছিলেন বরানগর থানার ইন্সপেক্টর ইনচার্জ কুন্তল মন্ডল ও সেকেন্ড অফিসার বলরাম বিশ্বাস। করোনা আবহে বরানগর এলাকার নিরন্ন সহায় সম্বলহীন মানুষের মুখে অন্ন তুলে দিতে উজ্জ্বল ভূমিকা পালন করেছিল বরানগর থানা। যার নেতৃত্বে ছিলেন বরানগর থানার ইন্সপেক্টর ইনচার্জ কুন্তল মন্ডল ও সেকেন্ড অফিসার সাব-ইন্সপেক্টর বলরাম বিশ্বাস।

বরানগর থানার ইন্সপেক্টর ইনচার্জ কুন্তল মন্ডল

করোনা উপসর্গে কোনোরকম ভয় না পেয়ে বরানগরের সর্বস্তরের মানুষের কাছে ত্রাতা হয়ে উঠেছিলেন বরানগর থানার এই দুই পুলিশ অফিসার। ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের করোনা রুখতে যে নির্দেশ দিয়েছিলেন থানা গুলিকে, তাতে বরানগর থানার এই দুই পুলিশ অফিসার উজ্জ্বল ভূমিকা নিয়েছিলেন।বরানগর থানা এলাকার যেখানেই করোনা আক্রান্ত মানুষের কথা শুনেছেন, সেখানেই দুই পুলিশ অফিসার করোনা রোগীদের সুস্থ করার জন্য হাসপাতাল অথবা কোয়ারেন্টাইনে ভর্তি করিয়েছেন। এই মানব সেবার ফলে বরানগর এলাকার জাতি-ধর্ম দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষের মুখে মুখে ঘুরছে বরানগর থানার ওসি কুন্তল মন্ডল ও বলরাম বিশ্বাসের নাম।

অবশেষে এই দুই করোনা যোদ্ধা যথাক্রমে বরানগর থানার ওসি কুন্তল মন্ডল ও সেকেন্ড অফিসার বর্ষিয়ান সাব-ইন্সপেক্টর বলরাম বিশ্বাস, দুজনেই করোনায় আক্রান্ত হলেন। এই দুই পুলিশ অফিসার হোম-কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। নিজেরা করোনা আক্রান্ত হলেও করোনা রোগীদের কিভাবে সেবা করা যায়, বরানগর থানার অন্য পুলিশদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নির্দেশ দিয়ে, করোনা রোগীদের সেবা করে চলেছেন এই দুই মহৎ পুলিশ অফিসার।

সেকেন্ড অফিসার সাব-ইন্সপেক্টর বলরাম বিশ্বাস।

করোনা আবহে সাধারণ মানুষদের মধ্যে সচেতনতা আনতে মাক্স-স্যানিটাইজার প্রচুর পরিমাণে বিতরণ করেছেন ওসি কুন্তল মন্ডল ও সেকেন্ড অফিসার বর্ষিয়ান সাব-ইন্সপেক্টর বলরাম বিশ্বাস। এলাকার মানুষ ওসি কুন্তল মন্ডল ও বর্ষিয়ান সাব-ইন্সপেক্টর বলরাম বিশ্বাসের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছে।।

Related posts

Leave a Comment